আল-বদর কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় কারাগারে

,

মুক্তিযুদ্ধকালীন আল-বদর বাহিনীর প্রধান কামারুজ্জামানকে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগার থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়েছে। এর আগে সোমবার রাতে কামারুজ্জামানকে কাশিমপুরের কেন্দ্রীয় কারাগার-২ থেকে কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছিল। মঙ্গলবার সকালে বাবার সঙ্গে দেখা করার জন্য গাজীপুর কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছিলেন কামারুজ্জামানের ছেলে হাসান ইকবাল। কিন্তু তাকে দেখা করতে দেয়া হয়নি বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে হাসান ইকবাল বলেন, মঙ্গলবার সকালে বাবার সঙ্গে দেখা করার জন্য গাজীপুর কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়। এ সময় কারা কর্তৃপক্ষ বলেছে, আজ ছুটির দিন, তাই দেখা করার কোনো বিধান নেই। এর কিছুক্ষণ পর জানতে পারি, বাবাকে গাজীপুর কারাগার থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার তড়িঘড়ি করে আমার বাবাকে ‘হত্যা’ করতে চাইছে। এজন্য আমরা আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করেছি, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যেন বাবার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারি। তবে কারা কর্তৃপক্ষ এখনো দেখা করার বিষয়টি স্পষ্ট করেনি।
প্রাণভিক্ষার ব্যাপারে হাসান ইকবাল আরো বলেন, সরকার আমাদের প্রতি যদি ভদ্র আচরণ করতো, তবে হয়তো প্রাণভিক্ষার ব্যাপারে আবেদন করার একটা রাস্তা থাকত। তা ছাড়া, বড় কথা হলো- বাবা রাষ্ট্রপতির কাছে কোনোভাবেই প্রাণভিক্ষা চাইবেন না।
সোমবার মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল কামারুজ্জামানকে আপিল বিভাগ ফাঁসির রায় বহাল রাখেন।

পাঠকের মন্তব্য


মন্তব্য প্রদান করতে লগইন করুন। আমাদের সাইটে আপনার একাউন্ট না থাকলে এখানে নিবন্ধন করুন।

পাতার শুরুতে