ঈদ মুবারক

জলবায়ু বিপর্যয়কারী অসার পরিকল্পনা বাতিল কর

,

সাগরে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে উপকুল বাঁচানোর জন্য ক্ষতিপূরনের দাবিতে রোববার বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে মানববন্ধন করে ‘বাংলাদেশ জলবায়ু ন্যাযতা দিবস’ পালন করা হয়।স্টাফ রিপোর্টার।। ’বাংলাদেশ জলবায়ু ন্যাযতা দিবস’ উপলক্ষ্যে বরিশালে এক ব্যতিক্রমী মানববন্ধনের আয়োজন করেছে প্রান্তজন ট্রাস্ট। আজ রোববার সকালে নগরী সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদী তীরে হাঁটু পানিতে দাড়িয়ে এ মানবন্ধনে অংশগ্রহন করেন সিডর, আইলাসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাড়ীঘর হারিয়ে নদীর তীরেই বসবাসকারী জোয়ার ভাটার সাথে যুদ্ধ করা মানুষগুলো।
গ্রামীন জীবনযাত্রার স্থায়ীত্ব উন্নয়নের জন্য প্রচারাভিযান (সিএসআরএল), ইক্যুইটি এন্ড জাস্টিস ওযার্কিং গ্রুপ বাংলাদেশ (ইক্যুইটিবিডি), হিউম্যানিটিওয়াচ, জাগো নারী, পার্টিসিপেটরি রিসার্চ এন্ড আ্যকশন নেটওর্য়াক (প্রান), পিরোজপুর গনউন্নয়ন সমিতি, প্রান্‌কজন ট্রাস্প,প্রগতি ও সহায় ফাউন্ডেশন এর আয়োজন করে।
প্রতিবছর ১৫ নভেম্বরের ‘বাংলাদেশ জলবায়ু ন্যাযতা দিবস’পালন করা হয়। এবার বাংলাদেশ সফররত জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন’র কাছে বাংলাদেশের দাবিগুলো তুলে ধরার জন্য বরিশালসহ উপকুলীয় এলাকার ১২ টি জেলায় ১৫ নভেম্বরের পরিবর্তে ১৩ নভেম্বর ‘বাংলাদেশ জলবায়ু ন্যাযতা দিবস’ পালন করা হলো।
উপকূল বাঁচানোর জন্য প্রতীকী এ উপস্থাপনায় শেষে বরিশাল সদর উপজেলার চর কাউয়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে সমাবেশে বক্তৃতা করেন উন্নয়ন কর্মী আনোয়ার জাহিদ, মুক্তিযোদ্ধা লাল মিয়া, এনায়েত হোসেন চৌধুরী, মো. নাসিরউদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, এসএম শাহজাদা প্রমুখ। বক্তারা জানান, গত ৫ বছরে সিডর, আইলা’র মতো দুর্যোগে বরিশালসহ দক্ষিনাঞ্চলে সাড়ে ৩ হাজার মানুষ প্রান হারিয়েছে। ১ কোটির বেশী মানুষ হারিয়েছে ঘরবাড়ি । প্রায় ৪৫ হাজার মানুষ দীর্ঘমেয়াদে ব্যস্তুচ্যুত হয়েছে। ঘন ঘন ৩ নম্বর সর্তক সংকেত দেয়ায় সমুদ্রগামী জেলেদের জীবন-জীবিকা হুমকির মুখে। তারা জলবায়ু বিপর্যয়ের অসার পরিকল্পনা বাতিলের উপর জোর দেন।

পাঠকের মন্তব্য


মন্তব্য প্রদান করতে লগইন করুন। আমাদের সাইটে আপনার একাউন্ট না থাকলে এখানে নিবন্ধন করুন।

পাতার শুরুতে